Romantic love story/ ভালবাসার এক দুষ্টু মিষ্টি রোমান্টিক প্রেমের কাহিনী

17
Romantic love story: দুষ্টু মিষ্টি প্রেমের কাহিনী, আমি জয়,পেশায় একজন ব্যবসায়ী। বাবা মায়ের একমাএ আদরের সন্তান। জীবনে কখনো প্রেম করা হয়নি। বাবা মা বিয়ের জন্য প্রেসার দিতেছে, এর পূর্বে অনেক মেয়েও দেখেছে কিন্তু আমার পছন্দ হয়নি। যাই হোক অনেক মেয়ে দেখেছি, এর মাঝে রিয়া নামের একটি মেয়েকে ভালো লেগেছে।

Romantic love story

ভার্সিটিতে পড়ালেখা করে।বাবা মায়ের অধিক আগ্রহের কারনেই রিয়ারর সাথে দেখা করার সময় নির্ধারন করা হল।জীবনে কখনো কোনে মেয়ের সাথে ডেট এ যাই নি। তাই সাথে করে প্রিয় বন্ধু রবিকে সাথে নিলাম। শহরের একটি কফিসপে বিকাল ৫টায় মিট করার সময় ঠিক করা হল।
romantic love story
romantic love story
যাই হোক ভালো করে পরিপাটি হয়ে রিয়ারর সাথে দেখা করার জন্য কফি সপে গেলাম সঙ্গে বন্ধু রবি ছিল।কফিসপে গিয়ে দেখি রিয়া আমাদের জন্য বসে আছে।

আমি আর আমার বন্ধু রবি

আমিঃ হায় রিয়া, কেমন আছো? সরি, আসতে একটু লেট হয়ে গেল। এবার রবি কে বললাম কিরে কথা বল।
রবিঃ আসসালামু আলাইকুম আপু কেমন আছেন? (অনেকটা ভয়ে ভয়ে)।
আমিঃ আরে বেটা ভাবি বল,আর দেড়মাস পর বিয়ে এখন থেকে ভাবি বল।
রবিঃ দোস্ত তোরা কথা বল,আমি বাহিরে আছি।
আমিঃ কিরে পাল্লাছিল কোনো?
রবিঃ তুই থাক,আমি গেলাম।

আমি আর রিয়া

আমিঃ বল,কি খাবে?
রিয়াঃ এখানে আমি কিছু খেতে আসিনি,আপনাকে কিছু কথা বলবে মনযোগ সহকারে শুনবেন।
আমিঃ মন দিয়ে না কান দিয়ে?
রিয়াঃ মন কান দুটোই দিয়ে খুব মনযোগ সহকারে।
আমিঃ ওকে।
রিয়াঃ আপনি বাসায় বলবেন আপনি বিয়েটা করবেন না।
আমিঃ কোনো,সমস্যা কি?
রিয়াঃ কোনো সমস্যা নাই,আমি বলতে বলছি তাই বলবেন।

Romantic love story bangla

আমিঃ বারে,কোনো সমস্যা থাকলে বলতে পারেন?
রিয়াঃ কোনো সমস্যা নাই, আপনি বিয়েটা করছেন না।
আমিঃ না, আমি বিয়েটা করছি।
রিয়াঃ আপনি তো ভীষন ছোচড়া!
আমিঃ ছোচড়ামোর দেখছেন কি?
রিয়াঃ অনেকটা রাগান্বিত হয়ে,ওই যেটা বলতে বললাম সেটা বলবেন।
আমিঃ আমি এখন বাসায় ফোন করে বলবো,মেয়ে আমার ডাবল পছন্দ হয়েছে, আর বিয়েটা দেড়মাস নয়,এই সপ্তাহে যাতে হয় সেই ব্যবস্থা করতে,হুম।
রিয়াঃ আপনার যা ইচছা তাই করেন,কিন্তু মনে রাখবেন বিয়েটা হচ্ছে না। এই কথা বলে রিয়া বাসায় চলে গেল।আমিও বাসায় চলে আসলাম।রাতে বিছানায় শুয়ে ভাবতেছি, মেয়েটা এমন করলো কোনো? আমাকে কি পছন্দ হয়নি নাকি? আবার প্রেম করে। এসব ভাবতে ভাবতে মা রুমে চলে আসলো।

মা আর আমি

মাঃ কিরে কার কথা ভাবিস?
আমিঃ কার আবার তোমার হবু বউয়ের কথা! আচ্ছা মা রিয়ার ফোন নাম্বার টা একটু দাওতো।
মাঃ ওকে নে,উল্টা পাল্টা কিছু বলিস না আবার। এরপর রিয়াকে কল দিলাম।

আবার রিয়া আর আমি

আমিঃ হ্যালো,রিয়া।
রিয়াঃ হ্যালো, কে?
আমিঃ আরে আমি,,চিনতে পারছেন না, আমি রাজ।
রিয়াঃ ও আপনি, তো কোনো ফোন দিয়েছেন।
আমিঃ বারে,আমি আমার বউকে ফোন দিতে পারি না।
রিয়াঃ অনেক টা রাগান্বিত কন্ঠো হ্যালো, মিস্টার আপনার বউ কে? আর কে বলেছে আমি আপনাকে বিয়ে করবো।
আমিঃ আরে,তোমাকে বিয়ে করতে কে বলেছে, তুমি শুধু কবুল বলবা।
রিয়াঃ খুব বিয়ে করার সখ হয়েছে না। ফোন রাখেন,আর কখনোই আমাকে ফোন দিবেন না। এই বলেই রিয়া ফোনটা কেটে দিল। আর আমিও রিয়ার কথা ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে গেলাম।

Bangla Romantic love story

bangla romantic love story
bangla romantic love story
এই প্রথম রিয়া দের বাসায় যাচ্ছি খালি হাতে গেলে কেমন দেখায় তাই সংগে করে কিছু মিষ্টি নিলাম। প্রায় ২০ মিনিট লাগে ওদের বাড়িতে যেতে।অবশেষ কলিংবেল বাজানোর সাথে আমার একমাত্র শালিকা এসে দরজা খুলে দেয়।

আমি আর আমার আদরের শালিকা

শালিকাঃ আসসালামু আলাইকুম দুলাভাই, কেমন আছেন?
আমিঃ খুব ভালো আছি, তুমি কেমন আছো?
শালিকাঃ ভালো, কি বেপার দুলাভাই আপুর সংগে দেখা করতে এসেছেন?
আমিঃ হুম,তেমার আপু সহ বিয়ের কেনাকাটা করতে যাব।
শালিকাঃ আপনি বসেন, আমি আপুকে ডাকছি। এই আপু তোকে দুলাভাই ডাকে?

আমি আর আমার শাশুরি

শাশুড়ি মাঃ আরে বাবা রাজ তুমি কখন এলে?
আমিঃ আসসালামু আলাইকুম, মা। এইতো কিছুক্ষণ আগে।
শাশুড়ি মাঃ ভাল আছি।আচ্ছা তুমি বস, আমি তোমার চা, নাস্তার ব্যবস্থা করছি।
আমিঃ আন্টি,আজকে চা খাবো না।আপনি অনুমতি দিলে রিয়া কে নিয়ে একটু মার্কেটে যেতাম।
শাশুড়ি মাঃ ওকে, তুমি একটু বস রিয়াকে ডাকছি!
আমিঃ আচ্ছা।
একটু পর আন্টি বলছে রিয়া নাকি অসুস্থ ও আজকে যেতে পারবেনা। তারপর আমিও আন্টি কাছ থেকে বিদায় নিয়ে বিষন্ন মনে বাড়ি আসি। রাতে রুমে একাই বসে বসে গান শুনছি, তখন রিয়ার কথা মনে পরলে। তাই রিয়াকে ফোন করলাম।
Bangla Romantic love story 2020
ফোন কলে আবারো আমি আর রিয়া
আমিঃ হ্যালো, কেমন আছো এখন? তোমার শরীর ঠিক আছে তো?
রিয়াঃ আরে থাক, আর বলতে হবে না। আমার কিছুই হয়নি, সব মিথ্যা বলেছি আমি।
আমিঃ ও, আপনি তো খুব ভালোই অভিনয় পারেন।
রিয়াঃ হুমম, তা একটু একটু পারি।
আমিঃ আমি মনে হয় আপনাকে একটু বেশি বিরক্ত করি তাই না?
রিয়াঃ হুমম, তা তো করেন।
আমিঃ ঠিক আছে, এরপর থেকে আপনাকে আর বিরক্ত করবো না। আর পারলে আমাকে ক্ষমা করে দিয়েন।
রিয়াঃ আপনার কথা শুনে অনেক ভালো লাগলো। ওকে বাই।

Romantic bangla love story

romantic bangla love story
romantic bangla love story
এভাবে দিন যেতে লাগলো আর রিয়া প্রতি আমার ভালোবাসা দিন, দিন বেড়ে যাতে লাগলো। বাড়িতে ও বিয়ের কাজ ধীরে ধীরে আগাচ্ছে। আমি কি করবো বুঝতে পারচ্ছি না। বাসায় মা বাবাকে কি ভাবে বলবো যে রিয়া আমাকে বিয়ে করতে চাচ্ছে না। এদিকে ৭ দিন থেকে রিয়ার সাথে আমার কোনো যোগাযোগ নেই। কি করবো একদম বুঝতো পারতেছি না। এসব ভাবতে, ভাবতে রিয়াকে ফোন দিলাম।

কিছুদিন পরে আবারো ফোন কলে আমি আর আমার প্রিয়তা রিয়া

আমিঃ হ্যালো রিয়া, কেমন আছেন?
রিয়াঃ জী, ভালো আছি। আপনি?
আমিঃ ভালো। কিন্তু একটু বেশি টেনশনে আছি।
রিয়াঃ কোনো সমস্যা?
আমিঃ আসলে বিয়ে বন্ধের ব্যবস্থা এখন পযন্ত করতে পারি নাই। কিভাবে যে মা, বাবাকে বলবো বুঝতো পারচ্ছি না। 

Romantic love story 2020

রিয়াঃ এই সামান্য ব্যাপার টা বলতে পারচ্ছেন না। আপনি একটা ভীতুর ডিম
আমিঃ তা ঠিক ধরেছেন বটে। আচ্ছা, সেম কাজটা তো আপনিও করতে পারেন।
রিয়াঃ কোন কাজটা?
আমিঃ এই যে আপনি আপনার বাবা মা কে বলবেন আপনি আমাকে বিয়ে করছেন না।
রিয়াঃ না,না আমি এই কথা বলতে পারবো না।
আমিঃ তাহলে এখন কি হবে??
রিয়াঃ আপনাকে আমার বিয়ে করতে হবে।
আমিঃ কিন্তু আপনি তো আমাকে পছন্দ করেন না। বিয়ে করবেন কোনো?
রিয়াঃ কে বলেছে? আপনাকে আমার পছন্দ হয়নি।
আমিঃ কোনে এতদিন তো আপনি বললেন বিয়ে বন্ধ করতে।
রিয়াঃ এটা তো আপনাকে একটু পরীক্ষা করছিলাম। আপনাকে আমার ভীষন পছন্দ হয়েছে।
আমিঃ তাহলে তো বিয়েটা করা যেতেই পারে।
রিয়াঃ হুমম, তবে আমার একটা শর্ত আছে?
আমিঃ ওকে। বলেন শুনি আপনার কি শর্ত।
রিয়াঃ সারাজীবন এভাবেই পেইন দিবে।
আমিঃ আমি রাজি।
আর এভাবেই দুটি অপরিচিত মুখ ভালবাসার গহিন বন্ধনে আবদ্ধ হয়।
সমাপ্ত

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here